Categories
লাইফ

এখন জ্বর হলে যা করবেন

জ্বর হচ্ছে যে কোনো রোগের উপসর্গ। তবে জ্বর করোনাভাইরাসের উপসর্গ হওয়ার কারণে এখন জ্বর হলে অনেকে ভয়ে থাকেন। তবে জ্বর হলেই ভয়ের কারণ নেই।

মেডিসিন ও ডায়াবেটিস রোগ বিশেষজ্ঞ কনসালট্যান্ট (সিটি স্কিন সেন্টার, শান্তিনগর, ঢাকা) ডা. ফাহিম আহমেদ রুপম যুগান্তরকে বলেন, মনে রাখবেন জ্বর মানেই করোনাভাইরাস নয়। তাই অহেতুক দুশ্চিন্তা না করে জ্বর সারিয়ে তোলার চেষ্টা করতে হবে।

আসুন জেনে নিই এ সময় জ্বর হলে কী করবেন-
১. জ্বর হলে তরল খাওয়াসহ প্রচুর পানি পান করতে হবে। জ্বর হলে শরীরে ঘামার কারণে পানির চাহিদা বেড়ে যায়। জ্বর এলে স্যুপ, ডাবের পানি, আখের রস খাওয়ার চেষ্টা করুন।

২. যে কোনো অসুখ থেকে সুস্থ হতে বিশ্রামের বিকল্প নেই। জ্বর এলে কাজ না করে বিশ্রাম নিন। এ সময়ে পর্যাপ্ত ঘুম প্রয়োজন।

৩. শরীরের প্রয়োজনীয় একটি উপাদান হলো জিঙ্ক। জ্বরের সময়ে জিঙ্কসমৃদ্ধ খাবার খেলে জ্বর দ্রুত ভালো হয়। এ ছাড়া শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে। গবেষণায় দেখা গেছে, শরীরে ফ্লুর ভাইরাস রোধে জিঙ্ক সাহায্য করে। এ ছাড়া ভিটামিন সি ও প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার খান।

৪. এ সময় লবণপানিতে গার্গল করলে উপকার পাবেন। গলায় যন্ত্রণা, কাশি হলে নিয়মিত লবণপানিতে গার্গল করুন। লবণপানি অ্যান্টিবায়োটিক। ফলে এটি ফ্লু বা জ্বর থেকে মুক্তি দেবে।

৫. নাক বন্ধ বা মাথাব্যথা হলে গরমপানির ভাপ নিতে পারেন। গলার মধ্য দিয়ে যে গরম বাষ্প প্রবেশ করলে কাশি ও গলাব্যথা কমবে।

Categories
শিক্ষা

একাদশে ভর্তি : ১ম ধাপে আবেদন করেনি আড়াই লাখ শিক্ষার্থী

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন শুরুর প্রথম ধাপে সারাদেশের ১৩ লাখ ৪২ হাজারের বেশি ভর্তিচ্ছু আবেদন করেছেন। গতকাল ২০ আগস্ট রাত ১১টা ৫৯মিনিট পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা প্রথম ধাপে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করতে পেরেছেন। শুক্রবার (২১ আগস্ট) দুপুরে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক ড. হারুন-অর-রশিদ দৈনিক শিক্ষাডটকমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। সে হিসেবে ২ লাখ ৫১ হাজার শিক্ষার্থী একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করেননি।

জানা গেছে, চলতি বছর ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে মোট পরীক্ষায় অংশ নেয় ২০ লাখ ৪০ হাজার ২৮ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ১৬ লাখ ৯০ হাজার ৫২৩ জন শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছিলেন। কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে এসএসসি ও দাখিল ভোকেশনাল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছিল ৯৫ হাজার ৮৯৫ জন শিক্ষার্থী। কারিগরি শিক্ষা বোর্ড আলাদাভাবে এইচএসসি ভোকেশনাল, বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ও বিভিন্ন ডিপ্লোমা কোর্সে ভর্তির আবেদন গ্রহণ করছে।

সে হিসেবে এসএসসি ও দাখিল পাস করেছে ১৫ লাখ ৯৪ হাজার ৯২৮ জন। যাদের মধ্যে ১৩ লাখ ৪২ হাজার ৭১৩ জন প্রথম ধাপে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করেছেন। সে হিসেবে ২ লাখ ৫১ হাজার ৯৫১ জন শিক্ষার্থী এইচএসসি বা আলিমে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করেননি।!
গত ৯ আগস্ট সকাল সাতটা থেকে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে অনলাইন ভর্তির কার্যক্রম শুরু হয়। ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ভর্তি কার্যক্রম শেষ হবে।

একাদশ শ্রেণিতে এইচএসসি ও আলিম শিক্ষার্থীদের ভর্তির ১ম দফায় অনলাইনে আবেদন গ্রহণ ৯ আগস্ট থেকে শুরু হয়ে ২০ আগস্ট শেষ হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করা হবে ২৫ আগস্ট রাত ৮টায়।

শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চায়ন করতে হবে ২৬ আগস্ট থেকে ৩০ আগস্ট রাত ৮টা পর্যন্ত। শিক্ষার্থী সিলেকশন নিশ্চায়ন না করলে ১ম পর্যায়ের সিলেকশন এবং আবেদন বাতিল হবে।

দ্বিতীয় পর্যায়ে আবেদন গ্রহণ ৩১ আগস্ট থেকে চলবে ২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত। পছন্দক্রম অনুসারে ১ম মাইগ্রেশনের ফল প্রকাশ হবে ৪ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায়। আর দ্বিতীয় পর্যায়ের আবদনের ফল প্রকাশ হবে একই দিন (৪ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টাতেই।

দ্বিতীয় পর্যায়ের শিক্ষার্থেীদের সিলেকশন নিশ্চায়ন ৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৬ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫টা পর্যন্ত। শিক্ষার্থী সিলেকশন নিশ্চায়ন না করলে ২য় পর্যায়ের সিলেকশন এবং আবেদন বাতিল হবে।

তৃতীয় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ চলবে ৭ ও ৮ সেপ্টেম্বর। পপছন্দক্রম অনুযায়ী ২য় মাইগ্রেশনের ফল এবং ৩য় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ হবে ১০ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায়।

তৃতীয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সিলেকশন নিশ্চায়ন করতে হবে ১১ সেপ্টেম্বর থেকে ১২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত। সিলেকশন নিশ্চায়ন না করলে আবেদন বাতিল বলে গণ্য হবে আর কলেজভিত্তিক চূড়ান্ত ফল প্রকাশ হবে ১৩ সেপ্টেম্বর সকাল ৮টায়। ভর্তি চলবে ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে সয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।
সূত্র : দৈনিক শিক্ষাডটকম

Categories
রাজনীতি

সেপ্টেম্বরের মধ্যে ছাত্রলীগের সকল ইউনিটের কমিটি

আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে ছাত্রলীগের সব ইউনিট কমিটি পূর্ণগঠন ও পূর্ণাঙ্গ করার উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে উপ-মহাদেশের প্রাচীন সংগঠন ক্ষমতাসীন ছাত্রলীগ।

ছাত্রলীগের প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়, জেলা, থানার কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার তাগিদ অনুভব করছে দলটি। ঐক্যবদ্ধ কর্মী সৃষ্টি করতে,রাজনৈতিক প্রয়োজনে ডাক দিলে এক ঘণ্টার নোটিশে যেন হাজার নেতা কর্মী রাজপথে নেমে আসতে পারে সেই তাগিদ থেকেই আ.লীগ ও সহযোগি সংগঠনগুলোকে সক্রিয় রাখতে নতুন কমিটি গঠন ও গঠিত কমিটি পূর্ণাঙ্গ করতে যাচ্ছে দলটি।

গতকাল এসব কমিটি গঠনে জোরালো দাবি তুলেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানকও।

বৃহস্পতিবার জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এ দাবি জানান।

নানক বলেন, শেখ হাসিনা যখন দেশের মানুশের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করে সমৃদ্ধির বাংলাদেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করছে তখন তার জীবনে হুমকির মুখে পড়বেই।

স্বার্থান্বেষীরা তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে প্রতিনিয়ত। ছাত্রলীগের কর্মীদের যেমন সেগুলো নজর রাখতে হবে। তেমনি ভবিষ্যতে বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালানো সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে।

সভায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান বলেন, ওয়ান ইলেভেনের কুশীলবদের ষড়যন্ত্র থেমমে নেই, বর্তমানে সুশীলের রূপ ধরে নানা অপতৎপরতা চালাচ্ছে। পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় যাওয়ার স্বপ্ন তারা এখনও দেখে। ছাত্রলীগসহ আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীদের সচেতন থাকতে হবে সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, জিয়া রহমান ও খন্দকার মোস্তাক একই সত্তা। তারা অবৈধভাবে ক্ষমতায় গিয়ে ইনডেমনিটি অ্যাক্ট জারি করে। বঙ্গবন্ধুর খুনিরা সবাই ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে।

ষড়যন্ত্রকারীদের ষড়যন্ত্র অব্যাহত আছে উল্লেখ করে সেটি প্রতিরোধে ছাত্রলীগকে সচেষ্ট থাকার আহ্বান জানান তিনি।

সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল, ছাত্রলীগ সভাপতি আল নাহিয়ান জয়, সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যসহ আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ।

কেন্দ্রিয় নেতাদের এ বক্তব্যের পর নড়েচড়ে বসেছে দলটি।গতকাল ওবায়দুল কাদেরও বলেছেন পর্দার আড়ালের গভীর চক্রান্তের কথা।রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা এসব ঘটনাকে সংকট বলে মনে করছেন।শেখ হাসিনা’র জীবন নাশ ও তার সরকারের পতনের পর্দার আড়ালের গোয়েন্দা তথ্য এবং নীলনক্সাও রয়েছে সরকারের হাতে।

এসব নানাবিধ কারনে দলটির শীর্ষ পর্যায় থেকে এসব কমিটিসমুহকে পূর্ণাঙ্গ করে রাজপথ দখল ও জাতিয় রাজনীতিতে নিজেদের সামর্থের জানান দিতে সক্রিয় কমিটি গঠনের উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে আ.লীগ।

কমিটি গঠনের বিষয়ে আল নাহিয়ান খান জয় বলেন, আমরা ইতিমধ্যে প্রস্তুতি নিচ্ছি। জেলা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেয়াদউত্তীর্ণ কমিটি গুলো আগে করব। তিনি জানান,দ্রুত সব কমিটি গঠন করা হবে।

Categories
নিউজ কর্নার রাজনীতি

পররাষ্ট্রনীতির কারণেই শেখ হাসিনা বিশ্ব নেতায় পরিণত হয়েছে

 

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উদ্দেশে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন: যারা বলেন, নতজানু পররাষ্ট্রনীতির কারণে রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানো যায়নি। তারা আহাম্মকের স্বর্গে বাস করছেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের পররাষ্ট্রনীতি কারণেই শেখ হাসিনা আজ বিশ্বনেতায় পরিণত হয়েছেন।

বুধবার দুপুরে ধানমন্ডিতে ৩এ প্রিয়াঙ্কা কমিউনিটি সেন্টারে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তর আয়োজিত এক বর্ধিত সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

১৫ আগস্ট পরবর্তী বিভিন্ন ঘটনার কথা তুলে ধরে নানক বলেন: সে সময় আমরা প্রতিবাদের ডাক পাইনি। আমরা প্রতিরোধের ডাক পাইনি। আমরা যুদ্ধের ঘোষণা পাইনি। একটি নেতার অভাবে। সেদিন নেতৃত্বের মধ্যে ভীরুতা, কাপুরুষতা, দোদল্যুমানতা এবং আপোষকামীতার কারণে লাখ লাখ আওয়ামী লীগ যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতাকার্মীরা হতাশার সাগরে নিমজ্জিত হয়েছে, আহাজারি করেছে।

‘কিন্তু সেই আওয়ামী লীগ, সেই মুজিব আদর্শের কর্মীরা প্রমাণ করে দিল এক-এগারোর সময়।এই নগর আওয়ামী লীগ প্রতিবাদ করেছিলেন, প্রতিরোধ করেছিলেন।’

তিনি আরও বলেন: নেত্রীকে গ্রেফতারের সাথে সাথে আপনারা হুঙ্কার দিয়ে বেরিয়ে গিয়েছেন। তাই সেই শক্তি এক-এগারোর অপশক্তি; তারা শেখ হাসিনাকে কারারুদ্ধ করে রাখতে পারেনি। মহানগর নেতাদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে বলেন, সংগঠনের কোন বিকল্প নেই।

নানক বলেন: মনে রাখতে হবে, ৭৫’র ১৫ আগস্ট যারা ঘটিয়েছিল, একাত্তরে যারা পরাজিত হয়েছিল, আন্তর্জাতিক সাম্রাজ্যবাদ, পাকিস্তানী গোষ্ঠী; তারা চুপ করে বসে নেই। কারণ একাত্তরে যে রাজাকার, আলবদর, আলশামস পরাজিত হয়েছিল তারা চুপ করে বসে ছিল না। আমরা তাদের সেই ষড়যন্ত্রের জালকে ছিন্নভিন্ন করে দিতে পারিনি। সেদিন আমাদের দলের ভিতরে আত্মকলহ ছিল। সেদিন ছিল ভাইয়ের রাজনীতি। আর সেই আত্মকলহ থাকার কারণে আমাদের যে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে, সেই ক্ষতির ছোবলে জাতিকে অনেক ক্ষতিপূরণ দিতে হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর এ সদস্য বলেন: দুঃসাহসিক নেত্রী শেখ হাসিনা; অনেকে সন্দেহ ছিল যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করা যাবে না? যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করা হলে, পৃথিবীর অনেক দেশের নাম বলা হতো, তারা নাকি উল্টে-পাল্টিয়ে দেবে? কিন্তু শেখ হাসিনা এমন এক নেত্রী তিনি জনগণের ভিত্তির উপর রাজনীতি করেন।

যোগ করেন: তাই যারা বলেন, নতজানু পররাষ্ট্রনীতির কারণে আজকে রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানো যায়নি। তারা আহাম্মকের স্বর্গে বাস করছেন। মির্জা ফখরুল সাহেব; আওয়ামী লীগ সরকার, শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার নতজানু পররাষ্ট্রনীতি মানে না বলেই শেখ হাসিনা আজ শুধু বাংলাদেশের নেতা নয়, বিশ্বনেতায় পরিণত হয়েছে। আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে শেখ হাসিনা এখন মধ্যমণিতে পরিণত হয়েছে।

জাহাঙ্গীর কবির নানক মির্জা ফখরুল ইসলামের উদ্দেশে আরও বলেন: আতঙ্কিত হবার কারণ নেই। মানবতার নেত্রী শেখ হাসিনা ১০ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছে। মানবতার নেত্রী এই ১০ লাখকে সেদিন যদি আশ্রয় না দিতেন তাহলে নাফ নদীতে মানুষগুলির আত্মাহুতি দেয়ার মতো অবস্থা হয়েছিল। সেদিন বিশ্ব মানবতার নেত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বিশ্ব মানবতার ইতিহাসে এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। ইনশাল্লাহ, শেখ হাসিনার চৌকষ ও বিচক্ষণ পররাষ্ট্রনীতির কারণে এই রোহিঙ্গারাও ফেরত যাবে। কোন রাজনীতি করার সুযোগ আপনাদের দেয়া হবে না।

দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন: আমাদের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব রয়েছে, ৭৫’র হত্যাকাণ্ডের সাথে খলনায়ক জিয়াউর রহমানসহ যারাই জড়িত আছে, তাদের মুখোশ উন্মোচন করার জন্য অবিলম্বে একটি ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং কমিশন গঠন করে সকল তথ্য উদঘাটন করে জাতিকে জানানো।

ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তরের সভাপতি শেখ বজলুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, মির্জা আজম, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া। সভা পরিচালনা করেন ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এসএম মান্নান কচি।

Categories
জাতীয় নিউজ কর্নার

বেকার শ্রমিকদের জন্য সুখবর দিল সরকার

বেকার শ্রমিকদের তিন হাজার টাকা করে দিবে সরকার। তবে এ অর্থ পাবেন রফতানিমুখী উৎপাদনশীল শিল্প পোশাক খাত এবং চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য খাতের কাজ হারানো বেকার শ্রমিকরা। এজন্য সরকারের আরেকটি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করা হবে।

জানা গেছে, ইইউ ও জার্মানির দেয়া অর্থে এ প্যাকেজ বাস্তবায়ন করা হবে। তিন মাস পর্যন্ত শ্রমিকরা এ অর্থ পাবেন। আগামী মাসেই (সেপ্টেম্বর) এ প্যাকেজ ঘোষণা হতে পারে।পাওয়ার অ্যান্ড পার্টিসিপেশন রিসার্চ সেন্টার (পিপিআরসি) ও ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব গভর্ন্যান্স ডেভেলপমেন্টের (বিআইজিডি) এক যৌথ জরিপ অনুযায়ী, জুনে এসে অতি দরিদ্র মানুষের আয় কমেছে ৩৪ শতাংশ। অর্থাৎ ফেব্রুয়ারিতেও যারা প্রতিদিন ১০০ টাকা আয় করতেন, জুনে তাদের আয় ৩৪ টাকা কমে ৬৬ টাকায় দাঁড়িয়েছে। এতে অতি দরিদ্ররা আরো দরিদ্র হয়ে পড়েছেন।

তিন বেলা খাবার জোটানোই এখন তাদের প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে।জরিপে আরো বলা হয়, করোনার শুরুতে গত এপ্রিল মাসে দেশে দারিদ্র্যের হার ৪৩ দশমিক ৮ শতাংশ হলেও জুন মাসে এসে তা দাঁড়িয়েছে ৪২ দশমিক ৮ শতাংশে। জুন মাসে লকডাউন কিছুটা শিথিল থাকায় এপ্রিলের তুলনায় দারিদ্র্য ১ শতাংশ কমেছে। এ সময়ে সবচেয়ে বেশি আয় কমেছে রিকশাচালকদের।

তাদের প্রায় ৫৪ শতাংশের আয় কমেছে। এরপরই রয়েছে ছোট ছোট ব্যবসায়ী, পরিবহন ও অদক্ষ শ্রমিকরা।পিপিআরসির নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন, বেঁচে থাকার তাগিদে মানুষ এখনো বাধ্য হয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজে বের হচ্ছেন, এর কোনো বিকল্প নেই।

 

কেননা করোনা মহামারিতে সরকারি সহায়তা খুবই অপ্রতুল। সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচিতে দরিদ্র মানুষকে যে সহায়তা দেওয়া হয়েছে, তা এক ধরনের টোকেন সহায়তা। নগদ সহায়তা নিয়ে ব্যাপক অনিয়ম হয়েছে। মাত্র ১৫ শতাংশ মানুষ সরকারি সহায়তা পেয়েছে। এই ১৫ শতাংশ সবাই আবার সাহায্য পাওয়ার যোগ্য ছিল না।

Categories
রাজনীতি

দলীয় প্রতীকেই হবে স্থানীয় সরকার নির্বাচন

স্থানীয় সরকার নির্বাচন দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত হবে বলে গত ২ দিন যাবৎ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরগরম চলছিল এমন নিউজ।  সাবেক ছাত্রনেতা জুবাইদুল হক রাসেল তার ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্ট থেকে এমন তথ্য শেয়ার করলে মুহুর্থে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

এ বিষয়ে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম জানান, দলীয় প্রতীকেই স্থানীয় সরকার নির্বাচন হবে। দলীয় প্রতীক ছাড়া এই মুহূর্তে স্থানীয় সরকারের কোনো নির্বাচন করার পরিকল্পনা সরকারের নেই। আসন্ন সিটি, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনগুলো দলীয় প্রতীকেই হবে বলে তিনি জানান।

 

মো. তাজুল ইসলাম বলেন, হঠাৎ করেই আইন পরিবর্তন করা যায় না। এখানে অনেক কিছু সিদ্ধান্তের ব্যাপার থাকে। আসন্ন পৌরসভায় দলীয় প্রতীক বাতিল করতে হলে অন্য স্থানীয় সরকার নির্বাচন যেমন- ইউপি, উপজেলা, সিটি করপোরেশন নির্বাচনও বাতিল করতে হবে।

সুতরাং সরকার এ ধরনের কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেনি। দলীয় প্রতীক তুলে দেওয়ার ব্যাপারে কয়েক দিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে প্রচারণা চলছে তাকে ‘রীতিমতো’ গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রীতিমতো গুজব শুরু হয়েছে। আমরা এখন পর্যন্ত এমন কোনো সিদ্ধান্ত নেইনি।এটা সরকারের নীতিনির্ধারণী যেমন বিষয়টি, তেমনি দলীয়ও বিষয় থাকে। এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমার কোনো কথা হয়নি।

Categories
আমার ক্যাম্পাস নিউজ কর্নার

কম্পিউটার চুরির ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ আটক ৭

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি থেকে চুরি হওয়া ৪৯ টি কম্পিউটার চুরির সংশ্লিষ্ট ০৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গোপালগঞ্জ সদর থানার এসআই মিজান। তিনি জানান, বশেমুরবিপ্রবির একুশে ফেব্রুয়ারি গ্রন্থগার লাইব্রেরী থেকে ৪৯টি কম্পিউটার চুরির ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. নূর উদ্দিন আহমেদ বাদি হয়ে গোপালগঞ্জ সদর থানায় গত ১০ আগস্ট একটি মামলা করেন।মামলার ভিত্তিতে গতকাল শুক্রবার রাতে অভিযান চালিয়ে গোপালগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা থেকে একজন ছাত্রসহ মোট পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনার গোপনীয়তার স্বার্থে তাদের পরিচয় সাময়িক সময় গোপন রাখা হয়েছে। এছাড়াও ঘটনায় সংশ্লিষ্টদের তদন্ত অভিযান কার্য চলমান থাকবে বলে তিনি জানান।
বিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. নূর উদ্দিন আহমেদ বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের যে ৪৯টি কম্পিউটার চুরির সাথে সংশ্লিষ্ট মোট ০৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ । এটা আমারা গণমাধ্যমের মাধ্যমে জেনেছি তবে এখনও অফিসিয়াল ভাবে জানতে পারিনি।
এরআগে গত বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) রাত সাড়ে ১০ টায় রাজধানীর বনানী এলাকার একটি হোটেল থেকে চুরি হওয়া কম্পিউটারগুলো থেকে ৩৪ টি কম্পিউটার উদ্ধার করা হয়। ঐসময়ে হোটেল মালিক দুলালসহ বয় হুমায়ুনকে আটক করে পুলিশ।
প্রসঙ্গত, ইদ-উল-আযহার ছুটিতে বশেমুরবিপ্রবির কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি থেকে ৪৯টি কম্পিউটার চুরি হয়েছে। এ ঘটনায় সাত সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

Categories
দেশ

মুজিব বর্ষ উপলক্ষে নরসিংদীতে এমপি বুবলির চারা গাছ বিতরণ

বুধবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘মুজিব বর্ষের আহ্বান, লাগাই গাছ বাড়াই বন’ প্রতিপাদ্য ধারণ করে  সারাদেশে এক কোটি বৃক্ষের চারা রোপণ কর্মসূচি গ্রহনন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ।

মুজিববর্ষের এক কোটি চারা ছাড়াও চলতি বৃক্ষরোপণ অভিযানে প্রতিটি সংসদীয় আসনের বিপরীতে পাঁচ হাজার করে মোট ১৫ লাখ বনজ, ফলদ ও ওষধি চারা বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ অন্যান্য সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাসে রোপণের জন্য বিতরণ করা হয়। এছাড়াও বন বিভাগের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বনায়ন কার্যক্রমের আওতায় এ অর্থবছরে সাত কোটি বৃক্ষরোপণ করা হবে। রোপণ পরবর্তীকালে এসব চারা যথাযথভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এরই ধারবাহিকতায় নরসিংদীতে তামান্না নুসরাত বুবলী এমপি গাছ বিতরন করেন।

এসময় ছাত্রলীগ সহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীদের মাঝে বিভিন্ন প্রজাতির চারা গাছ বিতরণ করা হয়।

Categories
শিক্ষা

এইচএসসি ও জেএসসি নিয়ে এখনো সিদ্ধান্ত হয় নি : শিক্ষা মন্ত্রনালয়

এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠানের তারিখ নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে ’কল্পিত’ তারিখ প্রকাশ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয় বলছে,এইচএসসি ও জেএসসি পরীক্ষার বিষয়ে এখনো কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।

আজ বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই কথা বলেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এতে আরও বলা হয়, কোভিড-১৯ মহামারিকে বিবেচনায় নিয়ে এইচএসসি ও জেএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠানের বিভিন্ন বিকল্প নিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ভাবছে। অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের উদ্বেগের কথা বিবেচনা করে শিগগির সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। যা গণমাধ্যমে সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হবে। অসমর্থিত কোনো মাধ্যমের তথ্যের ভিত্তিতে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের বিভ্রান্ত না হতে বিশেষভাবে অনুরোধ করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ বছরের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষা হচ্ছে না মর্মেও সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। এই বিষয়ে জনমনে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। কোভিড-১৯ মহামারিকে বিবেচনায় নিয়ে জেএসসি পরীক্ষার বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ চেয়েছিলেন। বিশেষজ্ঞরা তাঁদের পর্যবেক্ষণসহ কিছু বিকল্প প্রস্তাব দিয়েছেন। মন্ত্রণালয় প্রস্তাবগুলো পর্যালোচনা করছে।

Categories
শিক্ষা

সেপ্টেম্বরে খুলতে পারে প্রাথমিক স্কুল, বার্ষিক পরীক্ষা ৫০ নম্বরের

সেপ্টেম্বরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললে ৫০ নম্বরের পরীক্ষা নেওয়ার চিন্তা-ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন।

তিনি বলেন,‘পঞ্চম শ্রেণির নিচের শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা নিজ নিজ স্কুলে হবে।’

সচিবালয়ে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা না খোলার পরিস্থিতির ওপর তিনটি বিকল্প মাথায় রেখে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হবে আগামী সপ্তাহে।’

প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা নিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের পরীক্ষা নেওয়ার চিন্তা-ভাবনা আছেই। এই পরীক্ষাটা নিতে হলে আমাদের পাঠদানের যে সময় আছে, সেই সময়টা পাচ্ছি না।’

‘আমরা সেপ্টেম্বরের দিকে যদি স্কুল খুলে দিতে পারতাম, তাহলে শর্ট সিলেবাসে একটা পরীক্ষা (প্রাথমিক সমাপনী) নেওয়ার চিন্তা-ভাবনা ছিল।

আমরা শর্ট সিলেবাস করে পরীক্ষাটা নেবো। না-হলে কেন্দ্রীয় পরীক্ষা হবে না। আবার যদি তা না (সেপ্টেম্বরে না খুলে) হয়, অক্টোবরের দিকে খুলে তাহলে ৫০ নম্বরের পরীক্ষার ব্যবস্থা করতে পারি কিনা? যদি সম্ভব হয় তাহলে এমসিকিউ করতে পারি ৫০ নম্বরের।

এগুলো আমাদের চিন্তা-ভাবনা। পরীক্ষা (প্রাথমিক সমাপনী) আমরা রাখবো, পরীক্ষার কোনও বিকল্প নাই।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এখন যেহেতু সেপ্টেম্বরে স্কুল খুলতে পারবো কিনা, তা বলতে পারছি না। অক্টোবর-নভেম্বরের দিকে খুললে তখন কী অবস্থা হবে, আমরা একটা মূল্যায়নের ভিত্তিতে স্কুলে স্কুলে পরীক্ষা নেওয়ার চিন্তা-ভাবনা করতেছি।’

অক্টোবরে না খুললে কী পদক্ষেপ নেওয়া হবে প্রশ্নে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘অক্টোবরে না খুললে নভেম্বরে খুলবে, নভেম্বরে না খুললে তখন বিকল্প ব্যবস্থা নেবো।’ তবে সেই বিকল্প ব্যবস্থার কথা জানাননি প্রতিমন্ত্রী।

সমাপনী পরীক্ষার বদলে অটো পাসের চিন্তা-ভাবনার কথা আমরা শুনেছি, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘না। এরকম কোনও চিন্তা-ভাবনা আমাদের নেই। অটো পাসের চিন্তা নেই।

এমন কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি যে, পরীক্ষা নেওয়া হবে না। এরকম হুট করে বলা যায় না।’

‘অটো পাসের বিষয়টা প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবের ওখানে আমাদের মাধ্যমিকের সচিব এবং আমাদের সিনিয়র সচিব কথা বলেছেন, এটা নিয়ে (অটো পাস) আলোচনা করেছেন যে, এরকম কিছু করা যায় কিনা?’, জানান প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘আমাদের বিশেষজ্ঞ আছেন, অনেক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা আছেন, আমরা তাদেরকে নিয়ে বসে একটা ডিসিশন দেবো। আমরা যা-ই করি আমাদের অভিভাবক আছেন, আমরা সার-সংক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠাবো। উনি যেটি অনুমোদন করে দেবেন, আমরা সেটি বাস্তবায়ন করবো।’

প্রাথমিকের সমাপনী নিয়ে তিনটি পরিকল্পনার সার-সংক্ষেপ আগামী সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হবে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী।

পঞ্চম শ্রেণির নিচের ক্লাসের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার কী হবে, জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেন, ‘তাদের বার্ষিক পরীক্ষা হবে স্কুলে স্কুলে।’