ফাঁস হল রোনালদোর ধর্ষণের গোপন চুক্তিপত্র

ঢাকা, শুক্রবার, ১২ অক্টোবর ২০১৮ | ২৭ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ধর্ষণের অভিযোগের সপক্ষে যেসব প্রমাণ দেখানো হচ্ছে তাকে বানানো বলে দাবি করেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। তিনি বলেন, লাস ভেগাসে তখন যা হয়েছিল সেখানে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেনি। সেখানে যা হয়েছে তা সম্মতিতেই হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ৩৪ বছর বয়সী নারী ক্যাথরিন মায়োর্গা অভিযোগ করেছিলেন। ২০০৯ সালে লাস ভেগাসে একটি হোটেলে রোনালদো তার সঙ্গে জোর করে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেন বলে অভিযোগ ওই নারীর। পুলিশে অভিযোগ করলেও তদন্ত না করে ২০১০ সালে আদালতের বাইরে তিন লাখ ৭৫ হাজার ডলারে তা মীমাংসা হয় বলেও উল্লেখ করেন তিনি।সে সঙ্গে এ তথ্য কখনো প্রকাশ করা যাবে না, চুক্তিপত্রে এই স্বীকারোক্তি আদায় করা হয় বাদীর কাছ থেকে

২০১০ সালের ১২ জুলাই এই চুক্তিপত্র স্বাক্ষরিত হয়। যেখানে রোনালদো ও মায়োরগার সই রয়েছে। এই নথি প্রকাশ করে সংবাদমাধ্যমটির মন্তব্য, ‘এই নথির সত্যতা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। রোনালদোর আইনজীবীর পক্ষ থেকেও কিছু বলা হয়নি।’ প্রকাশিত এই নথিতে রোনালদোর ছদ্মনাম (টফার) ব্যবহার করা হয়েছে। সংবাদমাধ্যমটির বক্তব্য অনুযায়ী, প্রকাশিত নথিতে রোনালদোর আইনজীবী প্রশ্ন করেছিলেন, মিসেস সি (মায়োরগা) কি চিৎকার করেছিলেন? জুভেন্টাস তারকার জবাব, সে ‘না’ বলেছে এবং কয়েকবার বাধা দিয়েছে।চুক্তিপত্রের শর্তাবলি। ছবি: এএস

 

এদিকে লাস ভেগাস পুলিশ জানিয়েছে, তারা রোনালদোকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম মিররকে লাস ভেগাস পুলিশের মুখপাত্র বলেছেন, ‘আমরা জানি না এটা কখন ঘটবে (জিজ্ঞাসাবাদ)। তবে একটা পর্যায়ে গিয়ে অবশ্যই তাঁর কথা শুনতে হবে।’