লকডাউনকে কেন্দ্র করে হামলা-ভাঙ্গচুর, মামলা উঠিয়ে নেওয়ার হুমকি

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগরে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে লকডাউনে থাকাকে কেন্দ্র করে হামলা- ঘর-বাড়িসহ আসবাবপত্র ভাংচুর, নগদ অর্থ ও স্বর্ণ লুটের ঘটনা ঘটেছে। গত ২৩মে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় উপজেলার তন্তর এলাকার পুরারবাগ গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। ওই গ্রামের সিদ্দিক ঢালীসহ তার ভাইদের ঘর-বাড়িতে হামলা চালায় একই গ্রামের মৃত আলতাফ বেপারীর ছেলে নুরুজ্জামান বেপারী (৪৫) ও তার সহযোগিরা। এতে করে সিদ্দিক ঢালীর ভাই সুমন ঢালী ও তার মা আঘাত প্রাপ্ত হন এবং বাড়িতে ৩/৪ ঘর, ঘরে থাকা কাঠের খাটিয়া, ষ্টীলের আলমারী, শোকেস, টিভি, চেয়ার, বেচিংসহ অন্যান আসবাবপত্র ভাংচুর করে, আলমারীতে থাকা নগদ ও স¦র্ণ লুট করে নেয় হামলাকারীরা।

থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে অনুসন্ধ্যানে জানা যায়- সুমন ঢালী গত ১২মে ঢাকা থেকে গ্রামের নিজ বাড়িতে আসে। গ্রামেই পুরারবাগ মসজিদে নামাজ আদায় করতে গেলে মসজিদের সভাপতি নুরুজ্জামান বেপারী ও তার সহযোগিরা সুমন ঢালীকে মসজিদে নামাজ আদায় করতে নিষেধ করে। বর্তমান করোনা ভাইরাস সংক্রমন রোধে সুমন ঢালী ১৪দিন বাড়িতে থাকার সিদ্ধান্ত নেয় এবং বাড়িতেই থাকেন। গত ২০মে নুরুজ্জামান বেপারীর চাচা জাহাঙ্গীর আলমও ঢাকা থেকে বাড়িতে আসে কিন্তু সে বাড়িতে না থেকে অবাধে ঘুরা-ঘুরি এবং মসজিদেও নামাজ আদায় করে। ২৩মে শুক্রবার সিদ্দিক বেপারী জুম্মার নামাজ আদায় করতে গিয়ে দেখেন নুরুজ্জামান বেপারীর চাচা জাহাঙ্গীর আলম জুম্মার নামাজ আদায় করতে মসজিদে উপস্থিত আছেন। তখন নুরুজ্জমান বেপারীকে জিজ্ঞেস করলে, আমার ভাই ঢাকা থেকে আসছে বলে বাহিরে ঘুরা-ঘুরি ও মসজিদে নামাজ আদায় নিষেধ। কিন্তু তোমার চাচার জন্য নিষেধ নয় কেন? বলতেই নুরুজ্জামান বেপারী ক্ষিপ্ত হয়ে বাকতর্কে জড়িয়ে পড়েন। ঐদিনই বিকালে আছর নামাজের পরে সন্ধ্যা সাড়ে সাত টায় নুরুজ্জামান বেপারী রাগান্তিত হয়ে তার পালিত সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে সিদ্দিক ঢালীর বাড়িতে হামলা চালান এবং এ ভাংচুরের ঘটনা ঘটান।

তন্তুর ইউনিয়নের ৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি মহিলা সদস্য শিল্পী আক্তার বলেন- হামলার কিছুক্ষপ পরেই শ্রীনগর থানা পুলিশ এসআই আউয়ালসহ তার সঙ্গিয় সোর্স নিয়ে উপস্থিতিত হন এবং ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পুলিশশের উপস্থিতিতে নুরুজ্জামান গ্রুপ পুনরায় হামলা চালানোর চেষ্টায় মসজিদের সামনে লোকজন জড়াও হতে থাকলে পুলিশ তাদেরকে ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেন। এস.আই. আউয়াল- আজকের হামলার ঘটনাটি অতি দুঃখজনক কেন না একেতো করোনা ভাইরাসের কঠিন সময় যাচ্ছে, অপর দিকে রমজানের শেষ সময়।

ঐদিনই রাত্রেই সিদ্দিক বেপারী বাদী হয়ে নুরুজ্জামান বেপারীসহ তার সহযোগি হামলাকারী ১৩জনকে আসামী করে শ্রীনগর থানায় একটি অভিযোগ করে। পরের দিন ২৪মে বেলা সাড়ে ১১টায় ঐ অভিযোগের তদন্তে পুররায় শ্রীনগর থানায় এস.আই. আঃ কাদির ঘটনাস্থল সরজমিনে তদন্ত করেন এবং সেই রাতেই এজাহার ভূক্ত মামলা রুজু করে। যাহার মামলা নং১২/১০১, তাং ২৪.০৫.২০২০ইং। নুরুজ্জামান বেপারী বিকল্পধারার নেতা হওয়ার সুবাদের দলীয় প্রভাব খাটিয়ে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য সিদ্দিক ঢালী ও তার ভাইদের প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে।

নুরুজ্জামান বেপারীর সাথে এবিষয়ে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সময় উপস্থিত ছিলেন স¦ীকার করে বলেন আমি কিছু বুঝার আগেই আমার ছেলেরা এ ঘটনা ঘটিয়ে ফেলে। আমি মসজিদের সভাপতি ওনি মামলা করে ভুল করেছে আমি সমাজের লোকজন নিয়ে মীমাংশা করে দিতাম।