Categories
আন্তর্জাতিক

‘বিশ্বশান্তির জন্য হুমকি করোনা, নতুন সংঘাতের ঝুঁকি’

বিশ্বজুড়ে আগ্রাসী রূপ নেয়া করোনা মহামারীকে শান্তির জন্য হুমকি ও নতুন সংঘাতের জন্য ঝুঁকি তৈরি করছে বলে জাতিসংঘ জানিয়েছে।

আলজাজিরা জানায়, নিরাপত্তা পরিষদের একটি বৈঠকে এমন সতর্কতা দেন সংস্থাটির মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস।

তিনি বলেন, কভিড-১৯ মহামারী শুধু বিশ্বজুড়ে দারিদ্র্যের জন্য লড়াই ও শান্তি প্রতিষ্ঠায় হুমকিই নয়, এটি বিদ্যমান সংঘাতকে বাড়িয়ে তুলছে এবং কোনো ক্ষেত্রে নতুন সংঘাতের ঝুঁকি তৈরি করছে।

জাতিসংঘ মহাসচিব জানান, করোনাভাইরাসকে মোকাবিলা করতে বিশ্বজুড়ে সংঘাতস্থলগুলোতে অতিসত্ত্বর যুদ্ধ বিরতির তার আহ্বানের পর নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক থেকেও অনেকগুলো পক্ষকে যুদ্ধ বন্ধ ও বিরোধ নিরসনের জন্য বলা হয়।

তিনি বলেন, কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে যে, মহামারি এসব পক্ষকে একটি স্থায়ী যুদ্ধবিরতি বা সংঘাত স্থগিতের দিকে নিয়ে যেতে পারে।

গুতারেস আরও জানান, এ ছাড়া স্বাস্থ্য ব্যবস্থার কার্যকারিতা, সামাজিক সেবামূলক কর্মকাণ্ড এবং সরকার পরিচালনা ও প্রতিষ্ঠানের উপর বিশ্বস্ততা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে এই মহামারী।

তিনি বলেন, এসব কিছুর মানে হচ্ছে শান্তি বজায় রাখতে আগের চেয়েও বেশি প্রতিশ্রুতি আমাদের জন্য জরুরি।

জাতিসংঘের মহাসচিব সতর্কতা দেন যে, সম্মিলিত পদক্ষেপ না নিলে বৈষম্য, বৈশ্বিক দারিদ্র্য এবং অস্থিতিশীলতা ও সহিংসতার আশঙ্কা বছরের পর বছর ধরে বাড়িয়ে তুলবে।

এদিকে জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের পরিসংখ্যান অনুসারে, বাংলাদেশ সময় সকাল ৯টা পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা এখন পর্যন্ত দুই কোটি ৮ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। এর মধ্যে মারা গেছেন ৭ লাখ ৪৭ হাজারের বেশি।

মহামারীর প্রথম ধাক্কাকে সফলভাবে মোকাবিলা করা অনেক দেশ এখন দ্বিতীয় ধাক্কায় শঙ্কিত। ইউরোপে নতুন করে করোনা সংক্রমণ দেখা দিয়েছে।

আমেরিকা অঞ্চলে করোনা সংক্রমণ দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে। যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিল-উভয় দেশেই মৃতের সংখ্যা লাখ পেরিয়ে গেছে। আফ্রিকা অঞ্চলেও দিন দিন প্রকট হয়ে উঠছে করোনা পরিস্থিতি।

এর মধ্যে ইয়েমেন, সিরিয়াসহ মধ্যপ্রাচ্যে চলমান যুদ্ধ ও সংঘাতে খুব একটা প্রভাব ফেলতে পারেনি মহামারী। আফ্রিকা অঞ্চলের একাধিক দেশে নতুন করে সংঘাত ও সংঘর্ষ সৃষ্টি হচ্ছে।

Categories
আন্তর্জাতিক

১২ অগস্ট আসছে বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন

১২ অগস্ট আসছে বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন

সদরুল আইনঃ

                   ভ্যাকসিন এলেই মিলবে করোনা থেকে মুক্তি। এমন আশায় বসে আছেন গোটা বিশ্বের মানুষ। 

এরই মধ্যে সুখবর দিল রাশিয়া। রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দাবি, বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন আসছে ১২ অাগস্ট।

শুক্রবার (৭ আগস্ট) একথা জানিয়েছেন সে দেশের উপস্বাস্থ্যমন্ত্রী ওলেগ গ্রিডনেভ।

তিনি বলেন, সাফল্যের সঙ্গে এটি লঞ্চ করা হলে, এটিই হবে বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাক্সিন। আপাতত এই ভ্যাকসিনের তৃতীয় বা শেষ পর্যায়ের ট্রায়াল চলছে।

মন্ত্রী বলেন, চিকিৎসার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তি ও বয়স্ক লোকদের আগে এই ভ্যাক্সিন দেওয়া হবে।

এর আগে জানানো হয়, মস্কোর তরফ থেকে পরিকল্পনা করা হয়েছে যে, অক্টোবরেই ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।

ম্যাস ভ্যাকসিনেশন অর্থাৎ বহু মানুষকে একসঙ্গে ভ্যাকসিন দেওয়ার পরিকল্পনা তৈরি করা হচ্ছে।

রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরাশকো এমনটাই জানিয়েছিলেন।

Categories
আন্তর্জাতিক

৭ আগস্ট থেকে ফ্লাইট পরিচালনা করবে এয়ার অ্যারাবিয়া

মাঝখানে দুই বার চালু করে আবার ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করেছিল এয়ার এরাবিয়া। অবশেষে আবুধাবি-ঢাকা রুটে পুনরায় সরাসরি ফ্লাইট চালু করতে যাচ্ছে এয়ার অ্যারাবিয়া। আগামী ৭ আগস্ট থেকে ফ্লাইট চালুর ঘোষণা দিয়েছে তারা। এভিয়েশন বিডি। জানা গেছে, সপ্তাহে ২দিন বুধ ও শুক্রবার এয়ারবাস ৩২০ দিয়ে ফ্লাইট চালু করা হবে।

প্রতি বুধ ও শুক্রবার আবুধাবি থেকে সকাল ৯টায় ফ্লাইট ছেড়ে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টায় ঢাকায় পৌঁছাবে।[৪] উভয় দিন বিকেল ৪টা ৪০ মিনিটে ঢাকা থেকে ফ্লাইট রওনা হয়ে আবুধাবির সময় রাত ৮টায় সেদেশে পৌঁছাবে।

Categories
আন্তর্জাতিক

ইতালির সব কারাগার হবে মসজিদ

ইতালি সরকার ও ইউনিয়ন অব ইসলামিক কমিটিজ অ্যান্ড অরগানাইজেশন ইন ইতালির (ইউসিওআইআই) মধ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে, যার অধীনে ইমামরা কারাগারের মুসলিম বন্দিদের ধর্মীয় শিক্ষা-দীক্ষা প্রদান ও নামাজের ইমামতি করার সুযোগ পাবেন। কারা প্রশাসনের প্রধান বিচারক বার্নার্ডো পেট্রেলিয়া ও ইউসিওআইআইয়ের সভাপতি ইয়াসিন লাফরাম চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন।গত মাসে শেষ সপ্তাহে দেশটির মসজিদ ও প্রার্থনাকক্ষগুলো খুলে দেওয়ার ব্যাপার ইতালির প্রধানমন্ত্রী জিউসেপ কোঁতে ও ইউসিওআইআইয়ের প্রতিনিধি দলের মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সেই চুক্তির আলোকেই নতুন সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হলো। মুসলিম প্রতিনিধিদের সঙ্গে রাষ্ট্রীয়ভাবে চুক্তি স্বাক্ষরের ঘটনাকে অনেকেই ইতালিতে ধর্ম হিসেবে ইসলামকে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি প্রদানের অগ্রগতি হিসেবেই দেখছেনচুক্তি স্বাক্ষরের পর মুসলিম সম্প্রদায় স্বস্তি প্রকাশ করেছে।

ইতালির বিচার মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, ইতালির ৬০ হাজার বন্দির মধ্যে ১০ হাজারই বিদেশি। তাদের বেশির ভাগই মরোক্ক, তিউনিশিয়া ও রোমানিয়ার নাগরিক। ইতালির বন্দিদের মধ্যে সাত হাজার দুই শ জন মুসলিম। 

তাদের জন্য ৯৭ জন ধর্মীয় শিক্ষক রয়েছেন। বন্দির ৪৪ জনের দাবি তারা জেলেই ইসলাম গ্রহণ করেছে। বর্তমানে ইতালির মাত্র কয়েকটি জেলে মুসলিম বন্দিদের প্রার্থনার জায়গা রয়েছে, যা প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম।

ইতালির বিচার মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ইতালির সংবিধানে সব
নাগরিকের ধর্মীয় স্বাধীনতার নীতি রয়েছে—এই চুক্তি তা প্রয়োগে সহায়তা করবে। ইতালির সংবিধান সব বন্দির জন্য সঠিকভাবে ধর্মপালনের অধিকার দিয়েছে। ইতালির কারাগারে বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় সবার জন্য সঠিকভাবে ধর্মপালনের সুযোগ করে দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে।

চুক্তি অনুযায়ী ইউসিওআইআই ইতালিতে ইমামের দায়িত্ব পালনকারীদের একটি তালিকা দেবে, যারা সারা দেশের কারাগারের মুসলিম বন্দিদের ধর্মীয় দিকনির্দেশনা দেবে এবং তাদের নামাজের ইমামতি করবে। কর্মক্ষেত্র নির্বাচনে ইমামদের মতামত নেওয়া হবে। ইতালীয় মুসলিমদের নেতা লাফরাম বলেন, ‘এটি খুবই স্বস্তিকর। নতুন সমঝোতা চুক্তির আলোকে ইতালির সব কারাগারে জামাতের সঙ্গে নামাজ আদায় করা সম্ভব হবে। এটি মূলত পাঁচ বছর আগের একটি প্রজেক্টের সুফল, যার অধীনে ইতালির আটটি কারাগারে শুরু হয়েছিল।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে ইতালির কয়েকটি কারাগারে মুসলিম বন্দিদের নামাজের জন্য কক্ষ বরাদ্দ দেওয়া হয়। কিন্তু সেখানে একত্রে জামাতের সঙ্গে নামাজ আদায়ের সুযোগ ছিল না। তবে রমজানের মতো বিশেষ সময়ে কর্তৃপক্ষ জামাতে নামাজ আদায়ের অনুমতি দেয়।

Categories
আন্তর্জাতিক

যুবকের পেট থেকে বের হলো মদের বোতল

ভারতে পেটের ভেতর থেকে বের হলো আস্ত এক মদের বোতল। ২৯ বছরের বয়সের এক যুবকের পেট থেকে ওই বোতলটি বেরম করা হয়। দেশটির তামিলনাড়ুর নাগাপট্টিনাম জেলায় এই অবাক করার মতো ঘটনাটি ঘটেছে। ৪ জুন, বৃহস্পতিবার অপারেশন করে ওই বের করেন চিকিৎসকরা।

অনেকদিন ধরেই পেটে ব্যথা ছিলো ওই যুবকের। নিম্নাঙ্গে উঠতে বসতে অস্বস্তি বোধও করতে তিনি। তবে বিষয়টি প্রথমে গুরুত্ব দেননি তিনি। কিন্তু পেট ব্যথা বেড়ে গেলে তিনি হাসপাতালে যান। এরপর তার ইউএসজি রিপোর্ট দেখে চমকে ওঠেন চিকিৎসকরাও। এমন খবর প্রকাশ করেছে ভারতের সংবাদমাধ্যম নিউজ এইট্টিন।

জিজ্ঞাসাবাদ ওই যুবক জানান, সম্প্রতি মদের নেশায় তিনি নিজেই এমন কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলেছেন। মদের অতিরিক্ত নেশায় মদের বোতলটি পায়ুদ্বার দিয়ে ঢুকিয়ে দেন তিনি। পরেরদিন নেশা কাটলেও ঘটনাটির কথা সম্পূর্ণ ভুলে যান তিনি।

এ বিষয়ে চিকিৎসকেরা জানান, বেশ কয়েকদিন শরীরের ভেতর থাকায় বোতলটি চাপ লেগে যুবকের পাকস্থলীতে পৌঁছে গিয়েছে। তবে আশার কথা বোতলটি শরীরে ভিতর ভেঙে যায়নি। এমনটা হলে প্রাণহানি ঘটতে পারতো।

তারা আরো জানান, অবশেষে বৃহস্পতিবার দুইঘণ্টা ব্যাপী কঠিন অপারেশনের পর যুবকের পেট থেকে ওই বোতলটি বের করতে সক্ষম হন তারা।

Categories
আন্তর্জাতিক

সার্চ হিস্টোরি ট্র্যাকিং : গুগলের বিরুদ্ধে ৫০০ কোটি ডলারের মামলা

প্রাইভেট মোডে’ সার্চ হিস্টোরি ট্র্যাকিংয়ের অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রে প্রযুক্তি জায়ান্ট গুগলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। মামলায় প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে গুগল ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তা ভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়েছে। এজন্য গুগল ও এর মালিকানা প্রতিষ্ঠান আলফাবেটের কাছে ৫০০ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ চাওয়া হয়েছে। আইন সংস্থা বোয়িস শিলার ফ্লেক্সনার মঙ্গলবার ক্যালিফোর্নিয়ার একটি আদালতে এ মামলা দায়ের করেছে বলে খবরে জানায় বিবিসি।

খবরে বলা হয়, অনেক গুগল ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহারকারী মনে করেন যে, প্রাইভেট মোড বা ‘ইনকগনিটো মোডে’ তাদের ‘সার্চ হিস্টোরি’ ট্র্যাক করা হয় না। তবে গুগল জানিয়েছে, আদতে ব্যাপারটা তেমন নয়। তারা জানিয়েছে, ব্যক্তিগত মোডে ব্রাউজিং করার সময় ব্যবহারকারীদের ট্র্যাক করা অবৈধ নয়। এই মোডে তথ্য সংগ্রহের ব্যাপারটি তারা গোপন রাখেনি।

ইনকগনিটো মোডে ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহারকারীদের ব্রাউজারে তাদের কার্যক্রম নিবন্ধিত না হওয়ার সুবিধা পান। কিন্তু তারা যে ওয়েবসাইট ভিজিট করবে ওই ওয়েবসাইট চাইলে গুগল অ্যানালিটিকস ব্যবহার করে তাদের কার্যক্রমের খোঁজ রাখতে পারে।

গত ২ জুন, মঙ্গলবার দায়ের হওয়া মামলাটিতে বলা হয়, গুগল চাইলেই তাদের গোপন ও অননুমোদিত তথ্য সংগ্রহ চালিয়ে যেতে পারে না।

গুগল তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করেছে। প্রতিষ্ঠানটির মুখপাত্র হোসে কাস্তানিয়েদা বলেন, ‘কোনো ব্যবহারকারী যখনই ইনকগনিটো মোড চালু করেন, আমরা তখনই বলে দিই যে, ওয়েবসাইটগুলো চাইলে তাদের কার্যক্রম বিষয়ক তথ্য সংগ্রহ করতে পারবে।’

Categories
আন্তর্জাতিক

লিবিয়ার ২৬ বাংলাদেশি প্রবাসীকে গুলি করে হত্যা!

উত্তর আফ্রিকার দেশ লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশিসহ মোট ৩০ জনকে গুলি করে হত্যা করেছে স্থানীয় এক মানবপাচারকারীর পরিবারের সদস্যরা। বাকি চারজন আফ্রিকারই নাগরিক। এই ঘটনায় আরও ১১ জন মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২৮ মে) রাত পৌনে ৯টার দিকে দেশটির ইংরেজি সংবাদমাধ্যম ‘দ্য লিবিয়া অবজারভার’ নিজেদের ফেসবুক পেজে জানায়, নিহত বাংলাদেশিরা মিজদা শহরে নিহত ওই মানবপাচারকারীর জিম্মি ছিলেন।

দেশটির জাতিসংঘ সমর্থিত সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে জানানো হয়, এর আগে গত মঙ্গলবার (২৬ মে) রাতে কোনোভাবে ওই পাচারকারী জিম্মি অভিবাসীদের হাতে খুন হন। ওই ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে তার সহযোগী ও আত্মীয়স্বজনরা জিম্মি অভিবাসীদের ক্যাম্পে নির্বিচারে গুলি চালালে ঘটনাস্থলেই ২৬ বাংলাদেশিসহ মোট ৩০ জন মারা যান।

লিবিয়া প্রবাসী কল্যাণ ফোরামের ফেসবুক পেজেও এ খবর জানানো হয়েছে। লিবিয়াভিত্তিক অভিবাসীদের আন্তর্জাতিক সংস্থার মুখপাত্র সাফা মেশেলি ভুক্তভোগীদের সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেন, আমরা খবরটি পেলাম। বিস্তারিত জানার চেষ্টা করছি। যারা হাসপাতালে আছেন তাদের সাহায্য করছি।

সূত্র: ইউএস নিউজ, রয়টার্স

Categories
আন্তর্জাতিক

করোনা ভাইরাস ধ্বংসের জন্য মাত্র যে ৩টি কাজ করছে চীন

চীনের প্রায় প্রতিটি বাড়িতেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী আছে। কিন্তু সেখানকার বাসিন্দারা এই ভাইরাস এর জন্য কোনো ওষুধ বা ভ্যাকসিন নিচ্ছেন না। তারা এর চিকিৎসার জন্য আপাতত হাসপাতালে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। এর পরিবর্তে তারা গরম পানির ভাপ দিয়েই ভাইরাসকে বিনাশ করছেন।

করোনা ভাইরাস ধ্বংসের জন্য মাত্র ৩টি কাজ করছে তারা। সেগুলো হলো:

১. তারা দিনে চারবার কেটলি থেকে গরম পানির ভাপ নিচ্ছেন।

২. দিনে চারবার গরম পানি দিয়ে গড়গড়া করছেন।

৩. আর দিনে চারবার গরম চা পান করছেন।এভাবে টানা চারদিন এই ৩টি কাজ করেই ভাইরাসটিকে দমন করছেন তারা।

এভাবেই পঞ্চম দিনে হচ্ছেন করোনা নেগেটিভ।

[ভারতীয় এক নাগরিক যিনি করোনার উৎপত্তিস্থল চীনের উহানে বসবাস করেন। তার ফেসবুক স্ট্যাটাসের বরাতে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়েছে এই ঘরোয়া কৌশল। এই কৌশলে মাত্র ৪ দিনেই বিনাশ হচ্ছে করোনা ভাইরাস। ইতোমধ্যে সেই স্ট্যাটাসটি নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়েছে।]

সুত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন

Categories
আন্তর্জাতিক

সৌদির রাস্তায় পড়ে আছে বাংলাদেশির লাশ

সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদের একটি এলাকার সড়কে সকাল থেকে এক ব্যক্তির মরদেহ পড়ে রয়েছে। চলার পথে অসুস্থ হয়ে তিনি মারা গেছেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

যে স্থানে মরদেহ পড়ে রয়েছে তার কাছেই বাংলাদেশি আবু নেছার আলীর দোকান। তিনি বাংলা’কে বলেন, স্থানীয় সময় রবিবার সকাল ১১টার দিক থেকে মরদেহ ওখানে পড়ে রয়েছে। ভয়ে কেউ কাছে যাচ্ছে না।

নেছার জানান, মৃত ব্যক্তি বাংলাদেশি। তার নাম খলিল, বাড়ি পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায়।

খলিলের রুমমেট জাকির জানান, গত ১০-১২ দিন ধরে খলিল জ্বর-কাশি ও শ্বাস কষ্টে ভুগছিলেন। কোনো হাসপাতাল তাকে ভর্তি নেননি। সকালে তিনি ওষুধ আনতে বের হয়েছিলেন। পরে বাড়ি ফেরার পথে তিনি মারা যান।

খলিলের মরদেহের পাশে তার ওষুধের একটি ব্যাগ ও মানিব্যাগ পড়ে রয়েছে।

নেছার যখন এসব তথ্য দিচ্ছিলেন তখন সেখানে সময় বেলা সাড়ে ৩ টা (বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৬টা)। তিনি জানান, তারা সংশ্লিষ্টদের মাধ্যমে পুলিশ ও দূতাবাসে জানিয়েছেন। কিন্তু কেউ এখনো আসেনি।

Categories
আন্তর্জাতিক

করোনার শতভাগ কার্যকর অ্যান্টিবডি আবিষ্কার, মুক্তি মিলবে ৪ দিনেই!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

করোনার শতভাগ কার্যকর অ্যান্টিবডি আবিষ্কার, মুক্তি মিলবে ৪ দিনেই!
করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) নিয়ে বিশ্বজুড়ে আতঙ্কের মধ্যে আশার আলো দেখাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক একটি বায়োফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি। ‘সোরেন্টো থেরাপিউটিকস’ নামের কোম্পানিটি দাবি করেছে, করোনা প্রতিরোধী অ্যান্টিবডি বা প্রতিষেধক আবিষ্কার করেছে তারা। এই অ্যান্টিবডি ‘শতভাগ কার্যকর’ এবং রোগীকে মাত্র চারদিনেই করোনামুক্ত করবে।

শুক্রবারই (১৫ মে) সান দিয়োগোর কোম্পানি সোরেন্টো থেরাপিউটিকস আনুষ্ঠানিকভাবে এ বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরবে। তারা জানিয়েছে, ভ্যাকসিন বা টিকা বাজারে ছাড়ার আগেই এই অ্যান্টিবডির মাধ্যমে চিকিৎসা শুরু হয়ে যেতে পারে।

এই অ্যান্টিবডি নিয়ে প্রি-ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর সোরেন্টো থেরোপিউটিকস পরবর্তী কার্যক্রমে এগোচ্ছে। তবে কোম্পানিটির কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে আগেই এই ‘বিশেষ খবরটি’ দিয়েছে ফক্সনিউজ।

তাদের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সংক্রমণজনিত রোগের চিকিৎসায় অ্যান্টিবডির ব্যবহার শত বছর ধরে চলে আসছে। যদিও এর কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই গেছে। সেজন্য ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে সফল অ্যান্টিবডি বা করোনামুক্ত ব্যক্তির প্লাজমায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা নতুন চ্যালেঞ্জে ফেলতে পারে বলে আশঙ্কা করে। এতো শঙ্কা-সন্দেহ সত্ত্বেও সোরেন্টো থেরোপিউটিকসের কর্মকর্তারা বিশ্বাস করেন, করোনাভাইরাসের সফল চিকিৎসার চাবিকাঠি পেয়ে গেছেন তারা।

তাদের দাবি, গবেষণার অংশ হিসেবে তারা গত দশকে শত কোটি অ্যান্টিবডি সংগ্রহ করেছেন এবং সেগুলোর স্ক্রিনিংও করেছেন। এর মধ্যেই ডজনখানেকের মতো এমন অ্যান্টিবডি রয়েছে, যারা কার্যত করোনাভাইরাসকে মানুষের শরীরে গেঁড়ে বসা থেকে ঠেকিয়ে দিতে পারে।

সোরেন্টো থেরাপিউটিকস’র প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ডা. হেনরি জি এ বিষয়ে দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, ‘করোনা থেকে মুক্তির উপায় এসেছে, তা আমরা জোর দিয়ে বলতে চাই। এমন সমাধান এসেছে যা ১০০ ভাগ কার্যকর। এসটিআই-১৪৯৯ নামে এই অ্যান্টিবডি যদি আপনার শরীরে দেয়া হয়, তাহলে সামাজিক দূরত্বও আপনাকে বজায় রাখতে হবে না। আপনি নির্ভয়ে সবার সঙ্গে মিশে যেতে পারবেন।’

গত ডিসেম্বরে চীনের উহান শহর থেকে ছড়ানো করোনাভাইরাস গোটা বিশ্বকে কাবু করে ফেলেছে। বর্তমানে সবচেয়ে বেশি ভুগছে ইউরোপ-আমেরিকা-এশিয়াসহ বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চল। এ ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা এখন পর্যন্ত সোয়া ৪৫ লাখ। মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে তিন লাখ। তবে ১৭ লাখের বেশি রোগী ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন। খোদ যুক্তরাষ্ট্রেই আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ১৪ লাখের বেশি এবং মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৮৬ হাজার।

এই ভাইরাসের প্রতিষেধক বা ভ্যাকসিন আবিষ্কারে নির্ঘুম রাত কাটছে বিশ্বের বিজ্ঞানীদের। শত শত কোম্পানি এই ওষুধ আনার লড়াইয়ে নামলেও এখন পর্যন্ত কেউই সুখবর দিতে পারছে না। বেশিরভাগ প্রতিষেধক বা ভ্যাকসিনই পরীক্ষামূলক পর্যায়ে রয়েছে। এর মধ্যেই সোরেন্টো থেরাপিউটিকস এমন খবর দিলো।

ডা. হেনরি জি বলেন, এই অ্যান্টিবডি মানবদেহে থাকা ভাইরাসটিকে চারপাশ থেকে ঘিরে ধরে এবং সেটিকে মুড়িয়ে ওই দেহ থেকে বিতাড়িত করে দেয়।